ঐতিহ্যবাহী গৌরীপুর সুবল-আফতাব উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি মেজর মোহাম্মদ আলী (অব.)

0 56

 

||নিজস্ব প্রতিনিধি||
কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার ঐতিহ্যবাহী গৌরীপুর সুবল-আফতাব উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন দাউদকান্দি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী মেজর মোহাম্মদ আলী (অব.)।

বুধবার (০১ জুন ২০২২) বিকালে সকল নবনির্বাচিত অভিভাবক সদস্যদের ৯টি প্রত্যক্ষ ভোটে কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায়, তিনি বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বীতায় সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। ঐতিহ্যবাহী এই বিদ্যালয়ের সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় তিনি রাজনৈতিক নেতা-কর্মী, বিদ্যালয়ের শিক্ষক/শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের শুভেচ্ছায় ভাসছেন।

এক প্রতিক্রিয়ায় বিদ্যালয়ের নবনির্বাচিত সভাপতি মেজর মোহাম্মদ আলী(অব.) বলেন, এই বিদ্যালয়ের সুমহান ঐতিহ্য ও সুনাম রয়েছে, বর্তমান যুগোপযোগী শিক্ষা ব্যবস্থার সাথে মিল রেখে শিক্ষার মানোন্নয়নে কাজ করে যাবো। শিক্ষার্থীদের যেকোনো সমস্যা তাদের পাশে থাকবো।
এসময় তিনি আরো বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে, শুধুমাত্র পাঠ্যপুস্তকের মধ্যেই শিক্ষার্থীদের সীমাবদ্ধ না রেখে বিদ্যালয়ের শিক্ষক-অভিভাবক প্রতিনিধি এবং অভিভাবকদের সার্বিক সহযোগিতায়, শিক্ষার্থীদের যুগের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে বিভিন্ন কারিগরি শিক্ষা ও খেলাধুলার উপরেও জোরদার করবেন বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি উপজেলার শ্রেষ্ঠ উচ্চবিদ্যালয়ের স্বীকৃতি পেয়েছে এই বিদ্যালয়টি। শিক্ষার মানও সন্তোষজনক। বাংলাদেশের ইতিহাসে এই স্কুলে সমৃদ্ধ ইতিহাস রয়েছে। এ বিষয়ে বিশিষ্ট ইতিহাস গবেষক বাশার খান বলেন, ‘বাংলাদেশে হিন্দু-মুসলমান অসাম্পদায়িক সম্প্রীতি ও সামাজিক বন্ধনের অপূর্ব নিদর্শন “গৌরীপুর সুবল-আফতাব উচ্চবিদ্যালয়”। সুবল একজন হিন্দু ধর্মালম্বী এবং আফতাব একজন মুসলিমের নাম। দুই ধর্মালম্বীর যৌথ নামে এমন স্কুল সত্যিই বিরল।
স্কুলটির ছাত্ররা ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন, ৩জন জেলনির্যাতন ভোগ করেন।
স্কুলের ছাত্ররা ১৯৬৯-এর গণআন্দোলন ভূমিকা রাখেন। বঙ্গবন্ধুসহ রাজবন্দীদের মুক্তির দাবিতে সভা-সমাবেশে অংশ নেন। এর অনেক ছাত্র মহান মুক্তিযুদ্ধে অনবদ্য অবদান রাখেন। সুবল-আফতাবের শিক্ষার্থীরা বহু বছর ধরে মেধায়-মননে আলো ছড়িয়ে যাচ্ছেন।’

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.