বিদ্যালয়ের বিদ্যুৎ সংযোগ অবৈধ ব্যবহারে, প্র.শিক্ষককে জরিমানা, বাড়ি মালিকের কারাদণ্ড

0 222

 

||নিজস্ব প্রতিনিধি||

দাউদকান্দিতে বিদ্যালয়ের নিজস্ব বিদ্যুৎ সংযোগ থেকে, অবৈধ উপায়ে পার্শ্ববর্তী আবাসিক ভবনে দীর্ঘদিন যাবৎ বিদ্যুতের লাইন ব্যবহার করা এবং বিদ্যুৎ লাইনের অবৈধ সংযোগ ব্যবহারে সহযোগিতা করার কারণে, দাউদকান্দি উপজেলার সুন্দরপুর ইউনিয়নের,শহীদনগর এম,এ জলিল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আলমগীর ভূঁইয়াকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। একই ঘটনায় ফ্ল্যাট বাসার মালিক আয়নাল হককে একমাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন দাউদকান্দি উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কামরুল ইসলাম খান।

জানা যায়, শহীদনগর এম,এ জলিল হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মো. আলমগীর ভূঁইয়া স্কুল সংলগ্ন একটি ফ্ল্যাট বাসায় ভাড়া থাকেন। ওই বাসায় স্কুলের মিটার থেকে অবৈধভাবে বিদ্যুৎ সংযোগ নিয়ে তিনি দীর্ঘদিন যাবৎ ব্যবহার করে আসছেন। ইউএনও জানতে পারেন গত দুই মাসে উক্ত স্কুলের বিদ্যুৎ বিল এসেছে ১২ হাজার ৯১ টাকা। স্কুল বন্ধ থাকাবস্থায় কেন এতো বেশি টাকা বিদ্যুৎ বিল আসলো এটা দেখতে দাউদকান্দি বিদ্যুৎ অফিসের ডিজিএম কে তা দেখতে বলেন। ডিজিএম আজ বৃহস্পতিবার লোক পাঠিয়ে জানতে পারেন স্কুলের প্রধান শিক্ষক আলমগীর ভূঁইয়া অবৈধভাবে ওনার বাসায় এই বিদ্যুৎ ব্যবহার করে আসছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুল ইসলাম খান বলেন, এটা খুবই দু:খজনক ঘটনা। একজন শিক্ষক এমনটা করতে পারেন এটা ভাবাই যায় না। ১৯১০ সালের বিদ্যুৎ আইনের ৩৯ এর ‘ক’ ধারানুযায়ী প্রধান শিক্ষক মো. আলমগীর ভূঁইয়া কে ২০হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। একই ঘটনায় ফ্ল্যাটবাড়ির মালিক আয়নাল হক কে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.