দাউদকান্দি ভ্রমণ করেছে নেপালের ত্রিভুবন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধি দল

0 264

 

||নিজস্ব প্রতিনিধি||

বাংলাদেশ-নেপাল ইয়ুথ এন্ড কালচারাল প্রোগ্রাম এর অংশ হিসেবে কুমিল্লার দাউদকান্দি ভ্রমণ করেছে নেপালের ত্রিভুবন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধি দল। দাউদকান্দি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মেজর (অব.) মোহাম্মদ আলীর আমন্ত্রণে মঙ্গলবার (১৮ অক্টোবর ২০২২) প্রতিনিধি দলটি

দাউদকান্দির সোনালী আঁশ ইন্ডাস্ট্রি, প্লাবন ভূমিতে মৎস্য প্রকল্প ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গৌরীপুর পরিদর্শন করেন।

এদিন সকালে দাউদকান্দিতে নেপালের প্রতিনিধি দলকে অভ্যর্থনা জানান, দাউদকান্দি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মেজর (অব.) মোহাম্মদ আলী সুমন ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মহিনুল হাসান। এ সময় নেপালের শিক্ষার্থীদেরকে উত্তরীয় পরিয়ে সম্মাননা জানায় উপজেলা প্রশাসন। পরে আগত অতিথিরা মতবিনিময় করেন।

মতবিনিময় শেষে বৈদেশিক মুদ্রা আহরণ, মৎস্য ও খাদ্য উৎপাদন, পাট শিল্পে সমৃদ্ধ মেঘনা ও গোমতী নদী বেষ্টিত কুমিল্লার দাউদকান্দির সোনালী আঁশ ইন্ডাস্ট্রিজ, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও প্লাবন ভূমিতে মৎস্য চাষের প্রকল্প পরিদর্শন করেন নেপালী শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। বাংলাদেশের মানুষের আতিথিয়তায় মুগ্ধ হন তারা।

এই ভ্রমণ দুই দেশের মধ্যে পর্যটন বিকাশ ও সাংস্কৃতিক বিনিময়ে ভূমিকা রাখবে বলে আশা প্রকাশ করা হয় এ সময়। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে বাংলাদেশের সাথে নেপালের মিল খুঁজে পান শিক্ষার্থীরা। বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের নেপাল ভ্রমনের আহ্বান জানান তারা।

গ্রামীণ জীবনে আজ আধুনিকতার ছোঁয়ায় প্রাণবন্ত। প্রান্তিক মানুষের স্বাস্থ্যসেবা ও কর্মসংস্থানে এসেছে ব্যাপক পরিবর্তন। অতিথিদের কাছে এ বিষয়গুলো তুলে ধরেন দাউদকান্দি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মেজর (অব.) মোহাম্মদ আলী সুমন ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মহিনুল হাসান।

ডেলিগেটদের মাঝে নেপাল ত্রিভুবন বিশ্ববিদ্যালয়ের পদ্মা কন্যা মাল্টিপল ক্যাম্পাসের সাইকোলজি ও ক্লিনিকাল সাইকোলজি বিভাগের ৩০জন শিক্ষার্থী ও ছয় জন শিক্ষক অংশগ্রহণ করেন। ৭ দিনের সফরে ১৪ অক্টোবর তারা বাংলাদেশে আসেন। এ সময় শিল্প প্রতিষ্ঠান, বিশ্ববিদ্যালয়, পর্যটন এলাকা পরিদর্শন করবেন।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.